1. Eskander211@gmail.com : MEskander :
  2. rashed.2009.ctg@gmail.com : চাটগাঁইয়া খবর : চাটগাঁইয়া খবর
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:১৪ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রাম-২ ফটিকছড়ি সংসদীয় আসনের ভোট থেকে সরে দাঁড়ালেন বিটিএফ চেয়ারম্যান ফুলে মালা প্রতিকের নজিবুল বশর।

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারি, ২০২৪
  • ৪০ Time View

রফিকুল আলম :

চট্টগ্রাম-২ ফটিকছড়ি সংসদীয় আসনে বাংলাদেশ ত্বরিকত ফেডারেশন মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী ও ১৪ দলের নেতা সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী আনুষ্ঠানিক ভাবে বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারী) জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন।
বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় মাইজভান্ডার রহমানিয়া মনজিলস্থ ফটিকছড়ির সাংসদ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী তাঁর নিজ বাস ভবনে বিশেষ প্রেস ব্রিফিং করে ভোট থেকে সরে দাড়াঁনোর ঘোষণা দেন। ফটিকছড়িতে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নজিবুল বশর ভোট থেকে সরে যাওযার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলেও বিশেষ প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান ভাণ্ডারী। লিখিত বক্তব্য পাঠে ভান্ডারী আরো বলেন, ফটিকছড়ির মাটি ও মানুষের অফুরন্ত ভালবাসায় স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক নৌকা নিয়ে বারবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। এজন্য তিনি উপজেলাবাসী ও ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের নিকট কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করি। লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো উল্লেখ করেন, ১৪দলীয় জোট নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে ফটিকছড়িতে নৌকা প্রতীকের সমর্থন পূর্ণ্যব্যক্ত করেছেন সেহেতু উনার প্রতি সম্মান জানানো আমার নৈতিক দায়িত্বও বটে। এমতাবস্থায় ফটিকছড়িতে নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে নির্বাচন করা আমি সমীর সমীচীন মনে করি না। তাছাড়া আমি যদি নির্বাচন মাঠে থাকি তাহলে ভোটের যে সমীকরণ হবে, সেখানে আমার প্রাপ্ত ভোটের জন্য নৌকার বিজয় নিশ্চিতকরণের বাঁধার কারণ হতে পারে বলে আমি মনে করি। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে। ১৪ দলীয় জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সম্মান জানিয়ে ও ফটিকছড়ির সার্বিক উন্নয়নের
ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার নিমিত্তে আমি (নজিবুল বশরর মাইজভান্ডারী এমপি)  আগামী ৭ই জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে নিজেকে সরে গেলাম।
নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী দশম ও একাদশ সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে জোট নেতা হিসেবে বিজয়ী হয়েছিলেন। দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনেও ভাণ্ডারী জোটগত মনোনয়ন পাওয়ার প্রবল সম্ভাবনা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তিনি নৌকা বঞ্চিত হন। এরপর নিজ দলের মনোনয়নে ফুলের মালা প্রতীক নিয়ে ফটিকছড়িতে প্রার্থী হন ১৪ দলের নেতা ভাণ্ডারী। নির্বাচনী প্রচারণায় সাংসদ ভাণ্ডারীর পক্ষে তাঁর পুত্র সৈয়দ তৈয়বুল বশর মাইজভান্ডারী গণসংযোগ ও পথসভা করেন৷ তিনি উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও দু’টি পৌরসভা ব্যাপক গণসংযোগ ও পথসভা করেছিলেন৷
উল্লেখ্য, ১৯৯১ সালে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে প্রথমবার এমপি হন ভাণ্ডারী। ১৯৯৬ সালে বিএনপিতে যোগ দিয়ে ১৫ ফেব্রুয়ারীর নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে দ্বিতীয় বার সাংসদ হন মাইজভান্ডার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন সৈয়দ নজিবুল বশর। পরে নিজেই প্রতিষ্ঠা করেন বাংলাদেশ ত্বরীকত ফেডারেশন নামে একটি রাজনৈতিক দল। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলে যোগ দিয়ে ১৪ ও ১৮ সালের নির্বাচনে জোটগত মনোনয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে এমপি হন। এসময় বিটিএফ’র ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ তৈয়বুল বশর মাইজভান্ডারী, শাহ জালাল, কাজী আহসান উল মোরশেদ কাদেরী ও  আলমগীর আলম সহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।



Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

বিজ্ঞাপন

© All rights reserved © 2017 chatgaiyakhobor.Com