1. Eskander211@gmail.com : MEskander :
  2. rashed.2009.ctg@gmail.com : চাটগাঁইয়া খবর : চাটগাঁইয়া খবর
বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৭:৪৫ অপরাহ্ন

দোহাজারীতে মানবতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে যাচ্ছেন মরহুম আবুল কাশেম লেদু চেয়ারম্যান স্মৃতি ফাউন্ডেশন –চাটগাঁইয়া খবর

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২২ মে, ২০২০
  • ৭৯৭ Time View


এসএম রাশেদ :
দোহাজারী পৌরসভার মানবতার এক উজ্জ্বল অরানৈতিক সামাজিক সংগঠন মরহুম আবদুল কাশেম লেদু চেয়ারম্যান স্মৃতি ফাউন্ডেশন দোহাজারীবাসীর কাছে অন্যন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলছেন। এ সংগঠনটি ঝড়ে পড়া শিক্ষার্থীদের পাঁশে দাঁড়ানো,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো উন্নয়ন, বিভিন্ন খেলা-ধুলা,শিক্ষা বৃত্তিতে স্পসর, অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাড়াঁনোসহ যে কোন প্রাকৃতি দূর্যোগ,বন্যা ছাড়াও মানুষ যখন বিশ্ব প্রাণঘাতি নোভেল করোনা ভাইরাসে ঘরবন্দি, অসহায়, গরীব,দুস্থ পরিবারগুলোর কর্মহীন অসহায় হয়ে পড়েছে তখন উক্ত ফাউন্ডেশনটি বাড়ী ও এলাকায় এলাকায় গিয়ে খোঁজ নিয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে উপহার সামগ্রী (ত্রাণ) বিতরণ করে আসছেন এবং করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে সচেতনতা সৃষ্টিসহ সরকারী নিদের্শনা মেনে চলতে সকলকে আহবান করছেন। কোভিড-১৯ এমন মহামারিতে যখন মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছে না ঠিক তেমন মুর্হুতেও মরহুম আবুল কাশেম লেদু চেয়ারম্যান স্মৃতি ফাউন্ডেশনের সভাপতি আলহাজ্ব লোকমান হাকিম অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর কারণে দোহাজারী পৌরসভার সরকার পাড়া এলাকার সামাজিক সংগঠন বাতিঘর ফাউন্ডেশন তাকে বৃহস্পতিবার (২১ মে) সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রদান করেছেন। এছাড়া বিভিন্ন সামাজিক কাজে বিশেষ অবদান রাখায় মরহুম আবুল কাশেম লেদু চেয়ারম্যান স্মৃতি ফাউন্ডেশন অসংখ্য সম্মাননা স্মারকে ভূষিত হয়েছেন।
ফাউন্ডেশনের সভাপতি আলহাজ্ব লোকমান হাকিম এক স্বাক্ষাতকারে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে ও চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরীর অনুপ্রেরণায় তার পিতার গড়া মরহুম আবুল কাশেম লেদু চেয়ারম্যান স্মৃতি ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে নোভোল করোনা ভাইরাসে কর্মহীন অসহায় দুস্থ দোহাজারী পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের এ পর্যন্ত ৫ হাজার ৮’শ পরিবারের মাঝে এ উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছেন। তিনি আরো বলেন, তার পিতা মরহুম আবুল কাশেম লেদু ছিলেন বিলুপ্ত দোহাজারী ইউনিয়নের বার বার নির্বাচিত ও সুপরিচিত জনপ্রিয় একজন চেয়ারম্যান। দোহাজারীর রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন, ন্যায় বিচারক, ও শিক্ষা বান্ধব মানুষ ছিলেন বলে তিনি মানুষের ভালবাসায় সিক্ত হয়ে বার বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। তাছাড়া তাহার পিতা মৃত্যুর আগে বলে গিয়েছিলেন দোহাজারীবাসী আমার প্রাণের মানুষ ছিলেন, আমি মরে যাওয়ার পরও তোমরা (আমার পরিবার) তাদের সুখে দুখে পাশে থাকবে। যাতে কোনদিন আমি বেঁচে নেই দোহাজারীবাসী তা যেন অনুভব করতে না পারে। তাই উনাকে দেওয়া কথা রাখতে ও উনার আদর্শ অনুকরণ করে পিতার নামে ফাউন্ডেশন তৈরী করে উনার মৃত্যুর পর থেকে উক্ত ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে অসহায় শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ানো,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো উন্নয়ন, শিক্ষাবান্ধব বৃত্তি ও খেলা-ধুলায় স্পসর, গরীব,অসহায় লোকের মেয়ের বিয়ে সম্পাদনে, অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের পাশে, প্রতিবছর ঈদ উপহারসহ প্রাকৃতিক দূযোর্গ বিভিন্ন সময়ের বন্যায়ও উক্ত ফাউন্ডেশন দোহাজারীবাসীর সুখে-দুখে পাশে ছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় নোভেল করোনা ভাইরাসে দোহাজারীর কর্মহীন, অসহায়,দুস্থ এ পর্যন্ত ৫ হাজার ৮শ পরিবারের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে এবং এটা চলমান থাকবে।

২০২০,০৫,২২, ১১.৩৫এএম



Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

বিজ্ঞাপন

© All rights reserved © 2017 chatgaiyakhobor.Com