1. Eskander211@gmail.com : MEskander :
  2. rashed.2009.ctg@gmail.com : চাটগাঁইয়া খবর : চাটগাঁইয়া খবর
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৯:৪৫ পূর্বাহ্ন

প্রসুতি সহ গর্ভেই শিশুর মৃত্যু – ফটিকছড়ি সদরে অবৈধ সেবা ক্লিনিক এন্ড ল্যাব ইন সীল গালা ও জরিমানা

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৫ জুলাই, ২০২৩
  • ৯১ Time View

রফিকুল আলম :

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলা সদর বিবিরহাট বাজারের বাস ষ্টেশনের দক্ষিন দিকে অনুমোদন বিহীন অবৈধ সেবা ক্লিনিক এন্ড ল্যাব ইনে ভূল চিকিৎসায় গর্ভের শিশু সহ প্রসুতি রিনা আকতারের মৃত্যুর অভিযোগে ভিক্ষুদ্ধ  জনতা ক্লিনিকে হামলা ও ভাংচুর  করে। খবর পেয়ে ফটিকছড়ি ও ভূজপুর থানার বিপুল সংখ্যক পুলিশ অবস্থান নিয়ে উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। গত মঙ্গলবার (৪ জুলাই) রাতে  এ ঘটনা ঘটে।  বুধবার ( ৫ জুলাই) দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানের সময় কোন বৈধ কাগজপত্র দেখাতে না পারায় ভ্রাম্যনাম আদালতের  মেজিষ্ট্রেট  ও উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) এটিএম কামরুল ইসলাম ৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে ক্লিনিকটি সীল গালা করে দেয়। গতকাল প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে রিনা আকতার(২২) কে ফটিকছড়ি পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের পৈত্রিক বাড়ীর কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।
এদিকে গত মঙ্গলবার রাতে উত্তাপ্ত পরিস্থিতি সামাল দিতে ফটিকছড়ি ও ভূজপুর থানার বিপুল সংখ্যাক পুলিশ মোতায়ন করা হয়। রাতে ঘটনা স্থলে আসেন চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) সুদিপ্ত সরকার,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার( হাটহাজারী সার্কেল) সোয়েব আহমদ খান,উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: সাব্বির রাহমান সানি,ফটিকছড়ি থানার ওসি কাজী মাসুদ ইবনে আনোয়ার ও ভূজপুর থানার ওসি হেলাল উদ্দীন ফারুকী।
জানা যায়, বিবিরহাট বাজারের কাপড় গলির শাহ আমানত ক্লথ ষ্টোরের মালিক উপজেলার কাঞ্চননগর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মো: রুমান হোসেনের গর্ভবতী স্ত্রী  রিনা আকতারকে  ডেলিভারীর জন্য বিবিরহাট বাস ষ্টেশনের দক্ষিনে সেবা ক্লিনিক এন্ড ল্যাব ইনে গত ৪ জুলাই মঙ্গলবার বেলা ২ টার দিকে ভর্তি করলে  সন্ধ্যা ৭ টার দিকে সেখানে গর্ভের শিশু সহ প্রসুতি মারা যায়।  এসময় রুমান ও স্বজনদের আহাজারীতে এক হৃদয় বিধারক দৃশ্যের অবতারনা হয়। রিনার মা কুনছুমা খাতুন ও অন্যান্য স্বজনদের অভিযোগ  অপারেশনের জন্য  এ্যান্সেথেসিয়া কয়েকবার পুস (দেবার) করার পর ও সে অজ্ঞান  হয়নি। এমতাবস্থায় ক্লিনিকের লোকজন সন্ধ্যায় উক্ত রিনাকে অন্যত্র নিয়ে যেতে বলে। কিন্তু তার আগেই রিনার মৃত্যু হয়। এসময় রিনার মূখ মন্ডল ও শরীল কালো হয়ে যায় । পরক্ষনে ক্লিনিকের সবাই পালিয়ে যায়। ভূল চিকিৎসার কারনে এ মর্ম্মান্তিক ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ উঠেছে।
উক্ত ক্লিনিকের চেয়ারম্যান স্বপন কুমার দত্ত বুধবার ৫ জুলাই দুপুরে বলেন,এক রোগীর মৃত্যু নিয়ে উত্তেজিত জনতা হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে। পরে পুলিশ আসার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়।, তিনি আরো বলেন, অপারেশনের দায়িত্বে ছিলেন, ডাক্তার জাহেদ মঞ্জুর,ডাক্তার মো: নাছির ও ডাক্তার জুলফি আরা জুলি।  এসময় তিনি ক্লিনিকের অনুমোদনের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে কাগজপত্র জমা করা হলে ও এখনো অনুমোদন পায়নি বলে জানান।
ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: সাব্বির রসহমান সানি বলেন, পরিস্থিতি শান্ত আছে। উক্ত ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া লাইসেন্স না থাকায় ওই প্রতিষ্ঠানকে সিলগালা করা হয়েছে।
ফটিকছড়ি থানার ওসি কাজী মাসুদ ইবনে আনোয়ার বলেন, এঘটনায় এখনো বাদী হয়ে কোন অভিযোগ থানায় দেয়নি।



Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

বিজ্ঞাপন

© All rights reserved © 2017 chatgaiyakhobor.Com