1. Eskander211@gmail.com : MEskander :
  2. rashed.2009.ctg@gmail.com : চাটগাঁইয়া খবর : চাটগাঁইয়া খবর
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৬:২০ পূর্বাহ্ন

বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্যদিয়ে শান্তিপুর্ণ চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাচন সম্পন্ন

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৯ মে, ২০২৪
  • ১৩৩ Time View


চন্দনাইশ প্রতিনিধি


চন্দনাইশে ২টি পৌরসভা, ৮টি ইউনিয়নের ৬৮টি কেন্দ্রে বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনার মধ্য দিয়ে ৩য় ধাপে চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাচন ২৯ মে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত কঠোর নিরাপত্তায় শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে বেশিরভাগ কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি ছিলো খুবই কম।

বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটারদের উপস্থিতি কিছুটা বাড়লেও মহিলা ভোটারের সংখ্যা ছিল বেশী। ভোটগ্রহণ চলাকালে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু আহমদ জুনু ও জসীম উদ্দীন আহমদের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় অন্তত ১০জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। সরেজমিন পরিদর্শনে বিভিন্ন কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে ভোটার উপস্থিতি খুবই কম।

তবে মহিলা ভোটারদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মতো। সকাল থেকে ভোটকেন্দ্রগুলোতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে কয়েকটি ভোটকেন্দ্রের বাইরে ঘোড়া ও মোটরসাইকেল প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সকাল সাড়ে ৯ টায় দোহাজারী পৌরসভার জামিজুরী ফাজিল মাদ্রাসার ভোট কেন্দ্রের বাহিরে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু আহমদের সমর্থকরা চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম উদ্দিন আহমেদের কর্মী জামিজুরী এলাকার চাঁন মিয়ার পুত্র মোঃ আবুল হোসেন(২৭), ও আহমদ শফির পুত্র মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান(৩২) কে মারধর করলে তারা গুরুতর আহত হয়। আহতদেরকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে দোহাজারী হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আবুল হোসেনের অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় তাকে চমেক হাসপাতালে রেফার করেন।

বেলা ১১ টায় গোলযোগ সৃষ্টির কারণে দোহাজারী পৌরসভার হাছনদন্ডী মতিউর রহমান মাদ্রাসার কেন্দ্রের বাহির থেকে স্থানীয় কাউন্সিলর পহর উদ্দিনসহ আরো কয়েকটি ভোট কেন্দ্র থেকে আরো বহিরাগত ৫জনকে পুলিশ আটক করা হলেও ভোট শেষে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয় বলে জানা যায়।

দুপুর ১২টার দিকে গাছবাড়ীয়া খুনিয়ার পাড়া সরকারী প্রাঃ বিদ্যালয়ের কেন্দ্রের বাহিরে চেয়ারম্যান আবু আহমেদ চৌধুরীর সমর্থকরা কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করলে অপর চেয়ারম্যান জসীম উদ্দীন আহমেদ সমর্থদের ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায়। এব্যাপারে সহকারী রিটার্নিং ও উপজেলা নির্বাচনী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাকিবুজ্জামান বলেন, সরকারের নির্দেশনা অনুসারে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অবাদ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে অনুষ্ঠানের জন্য চন্দনাইশে ২টি পৌরসভা ও ৮টি ইউনিয়নে মোট ১৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ১জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৬ প্লাটুন বিজিবি,১ প্লাটুন র‌্যাব এবং পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ, আনসার ভিডিপির সদস্যগণ দায়িত্ব পালন করেছিলেন বলে জানান।



Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

বিজ্ঞাপন

© All rights reserved © 2017 chatgaiyakhobor.Com