1. Eskander211@gmail.com : MEskander :
  2. rashed.2009.ctg@gmail.com : চাটগাঁইয়া খবর : চাটগাঁইয়া খবর
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৩:৫৩ পূর্বাহ্ন

রাউজান পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী হতে চাই জমির উদ্দিন পারভেজ

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৬৮ Time View

প্রদীপ শীল, রাউজানঃ

আসন্ন।রাউজান পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী হতে চাই উপজেলা আওয়ামীলীগের নির্বাহী সদস্য, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি, রাউজানের সাংসদের মূখপাত্র জমির উদ্দিন পারভেজ।

তিনি বর্তমানে রাউজান পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র। জানা যায়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে রাউজানের সাংসদের উন্নয়ন রূপ কল্প বাস্তবায়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে আসছেন। সূত্রে প্রকাশ, জমির উদ্দিন পারভেজ ১৯৯১ সাল থেকে ছাত্র রাজনীতির সাথে যুক্ত আছেন। আওয়ামী রাজনীতির দুরসময়ে ১৯৯৩ সালে রাউজান সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন তিনি। জামাত বিএনপি’র সরকার আমলে ১৯৯৭ সালে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পান এই নেতা। তিনি টানা ১৭ বছর উপজেলা ছাত্রলীগের অর্পিত দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৯ সালে তিনি উপজেলা যুবলীগের সভাপতির দায়িত্ব পান। অধ্যবধি তিনি এই দায়িত্বে নিয়োজিত আছেন। ২০১৯ সালে আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্য নির্বাহী সদস্য নির্বাচিত হন। আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নয়নমনি জমির উদ্দিন পারভেজ যুদ্ধ অপরাধের দায়ে ফাঁসি হওয়া সাকা পরিবারের নির্যাতনের স্বীকার হয় বারবার। তাদের লালিত সন্ত্রাসীদের গুলির আঘাতে শরীরের বিভিন্ন অংশ এখনো অবশ। ক্ষতবিক্ষত শরীরে পীড়া দেয় আঘাতের চিহৃ। জমির উদ্দিন পারভেজ যখন গুলির আঘাতে হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছিল, তখন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী আওয়ামীলীগের সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে হাসপাতালে ছুটে আসেন ত্যাগী এই নেতাকে দেখতে। ছুটে আসেন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সিননিয়র নেতৃবৃন্দরা।

ত্যাগের মহিমায় নতুন জীবন ফিরে পাওয়া পারভেজ বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে ৩০টি বছর অতিক্রম করেছেন আওয়ামীলীগের রাজনীতির জন্য। ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে রাউজানের রাজনীতিতে আবিভূত হয় শান্তির দিকপাল এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী। তখন রাউজানের অনেক নেতাকর্মী দলীয় প্রার্থীর সাথে বিরোধীতা করে। তারা সংগঠনের সাথে বেঈমানি করে দলীয় প্রার্থীর পরাজয় নিশ্চিত করে ছিল। তখন জমির উদ্দিন পারভেজ ছিল একমাত্র রাজনৈতিক কর্মী নেত্রীর সাথে বেঈমানী করেন নি। সাথে রাউজানের অনেক নেতা ছিল। তৎমধ্যে উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রায়াত সভাপতিও ছিল। আসন্ন রাউজান পৌরসভা নির্বাচন সম্পর্কে জানতে চাইলে জমির উদ্দিন পারভেজ বলেন, রাউজানের সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী রাউজানকে উন্নয়নের মহা সড়কের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছেন রাউজানের রাজনীতিকে।

সন্ত্রাসের জনপদ থেকে শান্তির জনপদে পরিনত করেছেন রক্ত ভেজা রাউজানকে। যাহা রাউজানবাসী প্রতিনিয়ত সুফল পাচ্ছেন। তিনি যোগ্য পিতার যোগ্য সন্তান হিসাবে দল,মত, নির্বিশেষে সকলের প্রিয় নেতা হিসাবে স্বকৃতি অর্জন করেছেন। তার নেতৃত্বে রাউজান এগিয়ে যাচ্ছে এবং এগিয়ে যাবে ইন্আল্লাহ। রাউজানের অভিবাবক ফজলে ককরিম চৌধুরী আমাকে পৌর নির্বাচনে একক প্রার্থী হিসাবে উন্নয়নের সুযোগ করে দিয়েছেন। আমি আমার নেতার ছায়া ও প্রধানমন্ত্রীর ভিশন বাস্তবায়ে কাজ করতে চাই।

ইতিমধ্যে আমি নেতার নির্দেশে পৌর এলাকাকে উন্নয়নের শহরে পরিনত করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। কাজ করছি বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলার জন্য। মমতাময়ী প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের দরবারে ক্ষমতাশালী নারী প্রধানমন্ত্রী তালিকায় আছেন। তিনি আসন্ন রাউজান পৌরসভার নির্বাচনে আমাকে নৌকার প্রতীক বরাদ্দ দিয়ে রাউজান পৌরসভাকে একটি আধুনিক শহরে পরিনত করার কাজে নিয়োজিত করবেন। নেত্রীর প্রতি ও রাউজানের সাংসদের প্রতি আমার অবিচল আস্তা, বিশ্বাস রয়েছে।



Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

বিজ্ঞাপন

© All rights reserved © 2017 chatgaiyakhobor.Com