1. Eskander211@gmail.com : MEskander :
  2. rashed.2009.ctg@gmail.com : চাটগাঁইয়া খবর : চাটগাঁইয়া খবর
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৭:৪২ পূর্বাহ্ন

লোহাগাড়ার ছেলে ড. মোঃ মহিউদ্দিন মাহি IIUM এর অধ্যাপক হিসেবে যোগদান

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ৫ মার্চ, ২০২৩
  • ২৪২ Time View

(বিশেষ প্রতিনিধি)

গত ১ মার্চ”২০২৩ইং বুধবার আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়ায় (আইআইইউএম) এর কুল্লিয়্যাহ অব ইসলামিক রিভীল্ড নলেজ এন্ড হিউম্যান সাইন্সেস ফ্যাকাল্টিতে অধ্যাপক হিসেবে যোগদান করেছেন চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান, বিশিষ্ট ইসলামি গবেষক ও আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মহিউদ্দিন (মাহি)।

মুসলিম বিশ্বের সর্বোচ্চ আন্তর্জাতিক সংস্থা ওআইসি’র স্কলারশিপ নিয়ে ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়া এর কুরআন এন্ড সুন্নাহ ডিপার্টমেন্ট থেকে সর্বোচ্চ গ্রেডের সাফল্য নিয়ে ২০১২ সালে অনার্স সম্পন্ন করে মালয়েশিয়ান সরকারের শিক্ষাবৃত্তি অর্জন করে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃতিত্বের সাথে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন ২০১৫ সালে। দ্যা ইন্টারন্যশনাল ইনস্টিটিউট অব ইলামিক থোট (থ্রিপল আইটি) এর সর্বোচ্চ স্কলারশিপ নিয়ে অধ্যয়ন করে পরবর্তীতে একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি (ডক্টরেট) ডিগ্রি অর্জন করেন ২০২১ সালে। উচ্চতর শিক্ষার্জনের পূর্বে তিনি চট্রগ্রামের ঐতিহ্যবাহি চুনতি হাকিমিয়া কামিল মাদরাসা এবং বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল মাদরাসা থেকে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা লাভ করেন।

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়ায় তিনি ২০১২ সালে ২৮ তম কনভোকেশনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এ্যাওয়ার্ড “প্রেসিডেন্ট এ্যাওয়ার্ড” এ ভুষিত হন, যা পাহাঙ রাজ্যের রাজা সুলতান আহমাদ শাহ মু’তাসিম বিল্লাহর হাত থেকে গ্রহণ করেন ড. মুহিউদ্দিন। তা ছাড়া তিনি “ওভারঅল বেষ্ট এ্যাওয়ার্ড”, “বেষ্ট একাডেমিক এ্যাওয়ার্ড”, এবং “রেক্টর্স এ্যাওয়ার্ড” সহ ৫ টি উল্লেখযোগ্য এ্যাওয়ার্ড পেয়ে এক অনন্য রেকর্ড অর্জন করেন। তাছাড়া তিনি আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা, সংগঠন, প্রতিষ্ঠান থেকেও গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন ধরনের সম্মাননা পেয়ে বাংলাদেশের ইমেজকে বৃদ্ধি করেছেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। ২০১১ এবং ২০১২ সালে ওআইসি (Organization of Islamic Cooperation) এর এফিলিয়েটেড সংগঠন ICYF (Islamic Conference Youth Forum) এর আন্তর্জাতিক যুব সম্মেলনে উল্লেখযোগ্য কন্ট্রিবিউশান এর জন্য আন্তর্জাতিক দুটি সম্মাননায় ভূষিত হন ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন মাহি। ২০১১ সালের ওআইসি যুব সম্মেলনটি (IMOIC Global Summit 2011) ১১-১৭ জুলাই এ অনুষ্ঠিত হয় তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সাবান্চে বিশ্ববিদ্যালয়ে (Sabanci University)। আর ২০১২ সালের সম্মেলনটি (IMOIC Global Summit 2012) রাশিয়ান ফেডারেশন এর দি রিপাবলিক অব টাটারস্থানের কাযান রাজ্যে অনুষ্ঠিত হয় ৪-১০ জুলাই তারিখে। আন্তর্জাতিক কুটনীতি, নেতৃত্ব, নেটওয়ার্কিংসহ বিভিন্ন বিষয়ে সম্মেলনে অসাধারণ ভুমিকা পালন করেন তিনি। পরবর্তীতে ২-৬ জুলাই, ২০১৩ সালে আইসিওয়াইএফ (ICYF) এর আন্তর্জাতিক যুব সম্মেলনে (International Model OIC: Global Summit 2013) আয়োজক কমিটির সভাপতি ছিলেন ড. মুহিউদ্দিন। সম্মেলনে মালয়েশিয়ার রাজা সুলতান আহমাদ শাহ মু’তাসিম বিল্লাহ সহ বিভিন্ন দেশের মন্ত্রী, এমপি, রাষ্ট্রদূত, শিক্ষাবিদ, এবং প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

১৮ ডিসেম্বর ২০১৩ সাল, মালয়েশিয়াস্থ সৌদি আরবের দূতাবাস এবং ‘দ্যা কিং আব্দুল আজিজ ওয়ার্ল্ড সেন্টার ফর এ্যারাবিক লেঙগুয়েজ’ (The King Abdul Aziz World Centre for Arabic Language) এর যৌথ উদ্যোগে পালন করা হয় ‘আন্তর্জাতিক আরবি ভাষা দিবস’। আরবি ভাষার প্রচার ও প্রসারে অবদানের জন্য অনুষ্ঠানে বিশেষ সম্মাননা “The Recognition” প্রদান করা হয় ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন কে। ২০১৫ সালের ৪ ফেব্রুয়ারী, জাতিসংঘের ইউএনওএসি (United Nations Alliance of Civilization), মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, ভারতের মা’দিন একাডেমি এবং আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়া এর যৌথ উদ্যোগে ৪র্থ তম “আন্তধর্ম বিষয়ক শান্তি ও সম্প্রীতির সম্মেলন” এর আয়োজন করা হয়, এই দুটি সম্মেলনের আয়োজক কমিটির সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করেন ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন মাহি। পরবর্তীতে শান্তি, সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় অবদানের জন্য তিনি UNAOIC, IIUM, M’adin Academy এবং মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের (Department of National Integration) পক্ষ থেকে বিশেষ সম্মাননা পান।

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়ায়, বিভিন্ন কমিউনিটি লেবেলে, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অবদানের জন্য ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন কে আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়া ৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫ সালে বিশেষ সম্মাননা “দ্যা রিকগনিশন” (The Recognition) প্রদান করেন। ২০১৬ সালে ২৯ ডিসেম্বর, ভারতের কেরালায় অবস্থিত ‘মাদিন একাডেমি (Ma’din Academy)’ এর পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এবং শিক্ষাসেবায় বিশেষ অবদানের জন্য ‘দ্যা ভাইসেনিয়াম এপ্রিসিয়েশন এ্যাওয়ার্ড ২০১৬’ (The Vicennium Appreciation Award 2016) প্রদান করা হয় ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন (মাহি) কে। ইতোপূর্বে ড. মুহিউদ্দিন জানুয়ারি ২০২১ সাল থেকে কুয়েত বিশ্ববিদ্যালয়ের শরীয়া এবং ইসলামিক স্টাডিস ফ্যাকাল্টির অধীন ‘ইসলামিক ইকোনমিক এসোসিয়েশন’ এ কো-অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ২০২০ সালের মে মাস থেকে ড. মুহিউদ্দিন আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়ায় কুরআন এন্ড সুন্নাহ ডিপার্টমেন্টে খন্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে ক্লাস নেন।

১ আগষ্ট ২০১৬ সালে ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন মরক্কোর আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয় আগাদির (International University of Agadir, The Kingdom of Morocco) এ আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ডাইরেক্টর এবং স্কুল অব বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশনের (School of Business Administration) শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। তিনি সফলতার সাথে উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে দায়িত্ব পালন শেষ করে পিএইচডি সম্পন্ন করার জন্য পূণরায় মালয়েশিয়ায় ফিরে আসেন ১৫ জুন ২০১৭ সালে। উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত অবস্থায় তিনি মরক্কো সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দাওয়াতে বিভিন্ন কনফারেন্সে বক্তব্য প্রদান করেন।

২০১২ সালে ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন অনার্স সম্পন্ন করেই ১৫ মে ২০১২ তে আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়ায় ডেপুটি রেক্টর অফিসে (আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ/Office of the Deputy Rector for Internationalization, Industry and Community Relations) গ্রাজুয়েট রিসার্চ এসিস্ট্যান্ট (Graduate Research Assistant) হিসেবে যুক্ত হন। এবং একই সাথে গবেষনার মাধ্যমে মাস্টার্সেও অধ্যয়ন করেন। উক্ত অফিসে তিনি ৩০ আগস্ট ২০১৬ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ৪ বছর সফলতার সাথে কর্ম সম্পাদন করেন। আন্তর্জাতিক সম্পর্কোন্নয়ন, কুটনীতি, দ্বিপাক্ষিক সমঝোতা স্বাক্ষর, শিক্ষা বৃত্তি, আন্তর্জাতিক ও জাতীয় সেমিনার ও সম্মেলন বা কনফারেন্স আয়োজন সহ বিভিন্ন সেক্টরে ড. মুহিউদ্দিন কৃতিত্বের সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ে দায়িত্ব পালন করেন। দীর্ঘ দুই বছর তিনি আইআইইউএম (IIUM Global Forum) এর সেক্রেটারির দায়িত্বও পালন করেন। মালয়েশিয়ায় সর্ব প্রথম বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক সংগঠন ‘বাংলাদেশ স্টুডেন্টস ইউনিয়ন মালয়েশিয়া’র প্রতিষ্ঠা করেন ড. মুহিউদ্দিন মাহি ২০১৪ সালে যা বর্তমানে সর্ব বৃহৎ সংগঠন হিসেবে সর্ব মহলে গ্রহনযোগ্যতা পেয়েছে।

এ ছাড়াও বিভিন্ন দেশে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক অসংখ্য প্রোগ্রাম, সম্মেলন, কনফারেন্স, ফোরাম এবং সামিটে কখনো আয়োজক হিসেবে বা কখনো আলোচক হিসেবে অথবা প্রতিনিধি হিসেবে অংশগ্রহণ করে দেশ বিদেশে, মানব ও সমাজ সেবায় এবং শিক্ষা ও গবেষণায় সফলতার সাথে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখছেন ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন (মাহি)। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অসংখ্য সেমিনার, কনফারেন্স, এবং ফোরামে বিষয়ভিত্তিক আলোচনা এবং পেপার উপস্থাপন করে চলছেন। বর্তমানে তিনি ‘আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন অব মুসলিম স্কলারস’ এর সদস্য এবং ‘এশিয়ান-আফ্রিকান ইয়ুথ গভর্নমেন্ট’ (Asian-African Youth Government) এর সেক্রেটারি জেনারেল পদেও অধিষ্ঠিত আছেন।

ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়া ছাত্র সংসদ নির্বাচনে ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন ২০১০ সালে। এর পূর্বে তিনি তার ফ্যাকাল্টি এসোসিয়েশনেও ছাত্র কল্যান সেক্রেটারি হিসেবে নির্বাচিত হয়ে বিশেষ ভুমিকা রাখেন। তার অধ্যয়নকালে ছাত্র কল্যানে, কমিউনিটি সেবায় এমনকি মালয়েশিয়ায় জাতীয় পর্যায়ে অসংখ্য সেমিনার, কনফারেন্স এবং প্রোগ্রাম আয়োজন করে অসাধারণ নেতৃত্বের পরিচয় দেন। বাংলাদেশে শিক্ষাবিষয়ক অসংখ্য সেমিনারে আলোচক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। দারিদ্র্য দূরীকরণ, অসাম্প্রদায়িক সমাজ গঠন, শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। বিভিন্ন সময় অসহায় পরিবারকে সহায়তা, স্কুল-কলেজ ও মাদরাসার উন্নয়ন প্রকল্পে অনুদান, এবং মসজিদ ও মন্দির এর উন্নয়ন প্রকল্পে সহযোগিতা সহ মেধাবী শিক্ষার্থীদেরকে আর্থিকভাবে সহায়তা করে যাচ্ছেন। তা ছাড়া বিধবা ও অসহায় মহিলাদের স্বচ্ছলতায় ফিরাতেও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেন তার সক্ষমতার অধিনে। তিনি দীর্ঘ ৮ বছর ধরে প্রাতিষ্ঠানিক এবং অপ্রাতিষ্ঠানিক ভাবে এই সমস্ত মানব কল্যান ও সমাজ সেবার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

নতুন কর্মস্থল আন্তর্জাতিক ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়া সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন সহ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে শিক্ষা, গবেষণা, মানব ও সমাজসেবায় উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে সকলের কাছে তিনি দোয়া চেয়েছেন।

উল্লেখ্য, ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন মাহি চট্রগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলাস্থ চুনতি ইউনিয়নের নারিশ্চা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন চুনতি হাকিমিয়া কামিল মাদরাসা এবং বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল মাদরাসা’র সাবেক সহকারি অধ্যাপক আল্লামা মুহাম্মদ ফৌজুল কবির (রহ) এবং মুছাম্মদ হাফছা বেগমের ৪র্থ সন্তান। তিনি ভারত উপমহাদেশের বিখ্যাত মুফতি, শায়ের ও আলেমে দ্বীন চুনতি হাকিমিয়া কামিল মাদরাসা’র সাবেক নাজেমে আ’লা আল্লামা আবুল বারাকাত মুহাম্মদ ফজলুল্লাহ (রহ.) এর সুযোগ্য নাতি।



Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

বিজ্ঞাপন

© All rights reserved © 2017 chatgaiyakhobor.Com