1. Eskander211@gmail.com : MEskander :
  2. rashed.2009.ctg@gmail.com : চাটগাঁইয়া খবর : চাটগাঁইয়া খবর
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৮:৫৮ পূর্বাহ্ন

লোহাগাড়ায় কৃষি জমিতে তামাক চাষ, বাড়তে পারে স্বাস্থ্যঝুঁকি

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ, ২০২৩
  • ১৪১ Time View

(বিশেষ প্রতিনিধি)

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার তামাক, তামাকজাত দ্রব্য উৎপাদন এবং বিক্রি নিষিদ্ধ ঘোষণা করলেও লোহাগাড়া উপজেলার চুনতী ইউনিয়নে বাড়ছে ক্ষতিকর এই তামাক দ্রব্যের চাষ। জমিতে অন্যান্য ফসলের চেয়ে তামাকের উৎপাদন বেশি হওয়া এবং স্থানীয় বাজার গুলোতে তামাকের আশানুরূপ মূল্য পাওয়ার আশায় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী চক্র তামাক উৎপাদনে মরিয়া হয়ে উঠছেন। এ অবস্থায় চরম স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রয়েছেন এলাকার সাধারণ মানুষ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার চুনতী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের কিল্লাখোলা নামক এলাকায় প্রায় পাঁচ একর ফসলি জমিতে বিষাক্ত তামাকের চাষ করা হয়েছে। ওই এলাকার অনেকেই জানেন না যে, তামাক চাষে কুফল ও তার ক্ষতিকর প্রভাবের কারণ কি হতে পারে। এছাড়াও তামাক চাষে কৃষকদের নিরোৎসাহিত করতে স্থানীয় কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকেও তেমন কোনও কার্যক্রমও নেই বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। অতিরিক্ত মুনাফার আশায় জমির মালিক এই ফসলি জমি গুলোতে তামাক চাষের জন্য জমিগুলো কিছু অর্থের বিনিময়ে চুক্তি করে নেন। এতে পুরোধমে চালিয়ে যাচ্ছে এই বিষাক্ত তামাক চাষ। এই অবস্থায় চরম স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে দিন কাটাচ্ছে ওই এলাকার জনসাধারণ। অন্যদিকে কমছে কৃষি জমির উর্বরতা।

তামাক চাষে কাজ করা মাঝি মোঃ কামাল উদ্দিনের সাথে কথা বলে জানা যায়, কোম্পানির সাথে চুক্তি করে এই তামাক চাষগুলো করা হচ্ছে। বিষাক্ত এই তামাক চাষে ক্যান্সার সহ স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে নানা রকম রোগের কারণ হয়ে থাকে। আর তামাক পাতা হাত দিয়ে একবার ধরলে পরিস্কার হবে ঠিক, তবে হাত থেকে গন্ধটা অনেকদিন যায় না। আর এগুলো বয়স্কসহ ছোট ছোট বাচ্চাদের জন্য খুবই ক্ষতিকর বলেও জানান তিনি।

জানা গেছে, বান্দরবানের লামা উপজেলার একটি সিন্ডিকেট চক্র ওই এলাকার জমির মালিকদের সাথে বিভিন্ন ভাবে লোভ দেখিয়ে কিছু অর্থের বিনিময়ে তাদের কাছথেকে জমি গুলো হাতিয়ে নে। যে জমিগুলোতে কৃষক’রা পূর্বে থেকে নিয়মিত ধান চাষ সহ বিভিন্ন ধরনের কৃষি ক্ষেত করে আসছিলো। সম্প্রতি সময়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী চক্র তাদের কাছথেকে জমিগুলো বিষাক্ত তামাক চাষ করার জন্য চুক্তি করে নে। সেখানে করা হয়েছে বিষাক্ত এই তামাক চাষ। তামাক চাষে একদিকে যেমন বেড়েছে স্বাস্থ্য ঝুঁকি অন্যদিকে কমছে এসব কৃষি জমির উর্বরতা।

এদিকে তামাক চাষের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা জানান, কৃষি জমিতে তামাক চাষ করলে কোন ধরনের ক্ষতি হবে সে বিষয়ে তারা কোন কিছুই জানে না। জমিতে তামাক চাষ করে তারা কোনও রকম ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন না এবং কৃষি অফিসের লোকজনও চাষ করতে তাদেরকে নিষেধ করে নাই। তবে কোম্পানির সাথে চুক্তি করে এই তামাক চাষ করা হচ্ছে বলেও জানান তারা।

তবে চিকিৎসকরা বলছেন, তামাক চাষ অবশ্যই ক্ষতিকর। তামাক চাষ যে এলাকায় করা হয়, ওই এলাকার শিশু, বৃদ্ধসহ সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যঝুঁকি বেশি। তাই তামাক চাষ বন্ধ করার পরার্মশেও দেন তারা।

এ ব্যাপারে লোহাগাড়া উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানান, তামাক চাষ স্বাস্থ্যের জন্য অবশ্যই ক্ষতিকর। কোম্পানির সাথে চুক্তি তারা এই তামাক চাষ করে যাচ্ছে। তাছাড়াও নিষিদ্ধ ঘোষিত এই ক্ষতিকর তামাক চাষে কৃষকদের নিরোৎসাহিত করতে নানা ভাবে কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি আরও জানান, তামাক চাষে ফসলি জমির উর্বরতা কমিয়ে দেই। তবে উপজেলায় আগের চেয়ে অনেকটা কমে গেছে। ধীরে ধীরে আরও কমে গেলে জমিগুলোতে কৃষকদের উন্নয়নে তৈল, ভুট্টাসহ বিভিন্ন ধরনের লাভজনক ফসল ফেলানো নানান ধরনের চেষ্টা চালিয়ে যাবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ড. অরবিন্দ কুমার রায় বলেন, তামাক চাষ খুবই ক্ষতিকর। এটি স্বাস্থ্যঝুঁকিসহ নানা রকম রোগেরও কারণ। তামাক চাষে কৃষকদের নিরোৎসাহিত করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। তামাক চাষ বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলেও জানান তিনি।



Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

বিজ্ঞাপন

© All rights reserved © 2017 chatgaiyakhobor.Com